Mamato Boner Bandhobi Jokhon Crush Part 1 | Cute Love Story

মামাতো বোনের বান্ধুবি যখন ক্রাশ

Bitas pramanik – 

Part 1

দুপুর ২টার সময় আমার লোকেরা একটা মেয়ে কে তুলে নিয়ে আসে।মেয়েটার হাত,মুখ ও চোখ বাধা ছিল। এইটা দেখে আমার মাথায় রক্ত উঠে গেল। আমি সজিবের গালে একটা থাপ্পর দিলাম(সজিব হচ্ছে আমার ডান হাত)।আমি বললাম,

আমিঃ সজিব তোরে আমি বলছি।আমার কলিজা টা কে এমন ভাবে আনতে যাতে আমার কলিজার কোন কষ্ট না পায়।আর তুই ওকে এই ভাবে নিয়ে আসলি ।

সজিবঃ ভাই তাকে যখন নিয়ে আসি তখন খুব  ঝামেলা করতেছিল।তাই এই ভাবে নিয়ে আসলাম।ভাই এই বারের মত মাপ করে দেন।

আমিঃ আচ্ছা ঠিক আছে। তাড়াতাড়ি ওর হাত,  মুখ ও চোখের  বাঁধন খুলে দে।

ওরা মেয়েটার বাঁধন গুলো খুলে দিচ্ছে। এর ভিতরে আমি আমার পরিচয়টা দেই।

আমি বিতাস প্রামানিক। এইবার অনার্স ২য় বর্ষের পড়ি। আব্বু একজন ব্যবসায়ী। আম্মু  গৃহীনি। একটা বড় ভাই আছে। পড়াশো

Mamato Boner Bandhobi Jokhon Crush Part 1
Mamato Boner Bandhobi Jokhon Crush Part 1


না শেষ করে আব্বুর সাথে ব্যবসা দেখা শোনা করে। ভাইয়ার বউ মানে আমার ভাবিও আছে। ভাবি আমাকে অনেক ভালোবাসে। আমাকে কখনো বোনের অভাব টা বুঝতে দেয় না।

আর যে মেয়েটাকে তুলে নিয়ে আসলাম তার নাম নাদিয়া জান্নাত । ওর বাবা একজন কলেজের শিক্ষক। ওর একটা ছোট ভাই ও আছে।বাকিটা না হয় গল্পেই বলবো। যাই হোক এখন গল্পে আসি।

{ Mamato Boner Bandhobi Jokhon Crush Sad Love Story }

নাদিয়ার বাঁধন খুলে দিতেই সে আমাকে ওর সামনে দেখে খুব অবাক হলো।এবং খুব রেগে আমাকে বললঃ 

নাদিয়াঃ তুই আমাকে এখানে তুলে নিয়ে আসলি কেন?

আমিঃ নাদিয়া আমি তোমাকে খুব ভালোবাসি।

নাদিয়াঃ আমি তোকে ভালোবাসি না।

আমিঃ আমি জানি তুমিও আমাকে ভালোবাসো।

নাদিয়াঃ  তুই ভুল জানিস।

আমিঃ তুমি আমাকে তুই করে বলতেছ কেন? (তার হাত টি ধরে কথা টা বললাম)

নাদিয়া এবার রেগে গিয়ে বললঃ 

নাদিয়াঃ তুই কোন সাহসে আমার হাত ধরলি?  আমাকে স্পর্শ করার কোন অধিকার তোর নাই। আমার হাত ছাড়। আমি তোর বিয়ে করা বউ না যে আমার হাত ধরবি।

আমি আর কিছু না বলে নাদিয়ার হাত ছেড়ে দিলাম। ওর কথা শুনে আমার মাথা গরম হয়ে গেল ।আর ভাবতে লাগলাম সত্যিই তো আমার তো ওর উপর কোন অধিকার নাই। তাই আমি সজিবকে ডাক দিলাম।(আমি অবশ্য খুব জোরেই ডাক দেই।আসলে ওরা নাদিয়ার বাঁধন খুলে দিয়েই রুম থেকে বেরিয়ে গিয়েছিল।) 

পড়ুন  প্রেম কাহিনী – স্কুল জীবনের প্রেমের গল্প পর্ব 7 | Love Story

সজিব দৌড়ে রুমে আসল।

 

সজিবঃ ভাই বলেন? 

আমিঃ আমি এখনি বিয়ে করব। ১ ঘন্টার মধ্যে ব্যবস্থা কর।

সজিবঃওকে ভাই।

নাদিয়াঃ আমি মরে যাব তাও তোকে বিয়ে করব না।

আমিঃ সজিব তোকে আমি কি বললাম।এখানো এখানে দাঁড়িয়ে আছিস কেন? 

আমি নাদিয়ার কথার উত্তর দিলাম না।মনে মনে বললাম আমি জানি কি করে তোমাকে রাজি করাতে হয়।

 { Bangla love story, Bangla Valobashar Golpo }

নাদিয়াকে আমার রুমে রেখে আসলাম।আসলে নাদিয়াকে আমি আমার বাড়িতে  তুলে এনেছি।রুম থেকে বেরিয়ে আমার একটা লোককে বললামঃ

আমিঃ নাদিয়ার আব্বুর উপর নজর রাখ।

লোকটিঃ ওকে ভাই।

লোকটি চলে গেল।তাই আমি আম্মু কে কল দিলাম।কল রিসিভ করার পরঃ

আমিঃ আসসালামু আলাইকুম।আম্মু কেমন আছো? 

আম্মুঃওয়ালাইকুম আসসালাম।আলহামদুলিল্লাহ ভালো। তুই?

আমিঃ জ্বী আমিও আলহামদুলিল্লাহ ভালই আছি। 

আম্মুঃ এতদিন পর আমার কথা মনে হলো?(আম্মু অভিমান করে কথাটা বলল।)

আমিঃ কারণ টা তুমি ভালো করেই জান।যাইহোক যে জন্য কল দিলাম।আজ আমি বিয়ে করতেছি।যদি তোমার সময় হয় তাহলে এক সময় এসে আমার বউকে দেখে যেও।

আম্মুঃ হুম যাব নি।

আমিঃ আচ্ছা আম্মু ভালো থেকো। আল্লাহ হাফেজ। 

আম্মুঃ হুম আল্লাহ হাফেজ।

(আসলে আব্বু আমাকে বাড়ি থেকে বের করে দেয়।তাই এখন আমি একাই থাকি।গল্পের সাথেই থাকুন তাহলে জানতে পারবেন যে কেন আমাকে বাড়ি থেকে বের করে দিয়েছিল।)

তারপর আমি ভাইয়াকে কল দেই।

আমিঃ আসসালামু আলাইকুম ভাইয়া। 

ভাইয়াঃ ওয়ালাইকুম আসসালাম।

আমিঃ ভাইয়া আমি আজ বিয়ে করতেসি।

ভাইয়াঃ কি! সত্যি? 

আমিঃ হুম সত্যি।১ঘন্টার মধ্যে আমার বাড়িতে চলে আস।

ভাইয়াঃ সরি রে।আমাকে কাল বল।আজ সকালের ফ্লাইটেই আমি সিঙ্গাপুর এসেছি অফিসের কাজে।

আমিঃ ওহ আচ্ছা ।

ভাইয়াঃ মন খারাপ করিস না।দেশে ফিরেই তোর সাথে দেখা করব।

আমিঃ ওকে ভাইয়া।আচ্ছা ভাইয়া। আল্লাহ হাফেজ। 

ভাইয়াঃ আল্লাহ হাফেজ। 

এইবার ভাবিকে কল দিলাম।

আমিঃ ভাপু সোনা কেমন আস ?

ভাবিঃ ওই ভাপু কিরে ?

আমিঃআরে তুমি তো আমার ভাবি আবার আমি তো তোমাকে আপু বলে ডাকি তাই ভাবির ভা আর আপুর পু এই ২ তা নিয়ে ভাপু। বুঝছ ?

ভাবিঃ তোমার খালি শয়তানি। তা তুমি তো এই অসময়ে কল দাও না।তা কোন দরকারে কল দিছো নাকি?

পড়ুন  Love Never Ended Emotional Sad Love Story Bangla Part 18

আমিঃ হুম।একটা কথা বলার জন্য কল দিছি।তার আগে বল কেমন আছো ?

ভাবিঃ আলহামদুলিল্লাহ ভাল।এখন বলো।

আমিঃ আমি আজ বিয়ে করতেসি। 

ভাবিঃ মেয়েটা কে হুম?  আর আমাকে রেখেই বিয়ে করবা ?

আমিঃ নাদিয়াকে বিয়ে করব। আর তোমাদের কে ছেড়ে বিয়ে করতে ইচ্ছা করছে না।তাও করতে হচ্ছে তার কারন তা তুমি জান।

ভাবিঃ হুম। 

আমিঃ আচ্ছা ভাবি আল্লাহ হাফেজ। 

Also Visit Those  Romantic Love Stories

(১ ঘন্টা পর)

বিয়ের সব কিছুই রেড়ি ( আমি জানি নাদিয়াও আমাকে ভালোবাসে কিন্তু সে আমাকে ভুল বুঝেছে )। কাজি সাহেব বিয়ে পড়ানো শুরু করল।আমাকে কবুল বলতে বলল, আমি তো সাথে সাথেই কবুল বললাম। এইবার নাদিয়াকে বলতে বলল। নাদিয়া কিছুতেই কবুল বলতেছে না।আমি জানতাম সে এমন টা করবে তাই।সজিব কে বললামঃ

আমিঃ সজিব তাড়াতাড়ি আমার ল্যাপটপ টা নিয়ে আয়।

সজিবঃওকে।

 

(কিছুক্ষন পর)

সজিবঃ এই নেন ভাই।

আমিঃ হুম  দে।

আমি ল্যাপটপ টা নিয়ে একটা ভিডিও ওপেন করে নাদিয়াকে দেখালাম।আর ভিডিও টা দেখার সাথে সাথেই নাদিয়া  কবুল বলল।

আপনারা নিশ্চয় ভাবছেন যে আমি কি এমন বললাম যার জন্য নাদিয়া রাজি হয়ে গেল।আসলে আমি তখন নাদিয়াকে দেখাইছি যে আমার কিছু  লোক নাদিয়ার আব্বু কে ফলো করতেছে। আর তাদের হাতে বন্দুক। এইটা দেখেই সে রাজি হয়ে যায়। এখন গল্পে আসি…………………………

{ Bangla Premer Golpo }

নাদিয়া কবুল বলেই আমার কাছে এসে বললঃ

নাদিয়াঃ  প্লিজ আমার আব্বুর কোন ক্ষতি করিও না। আমার আব্বুকে প্লিজ ছেড়ে দাও।(কথাটা বলেই কান্না করতে থাকল।)

আমিঃ প্লিজ কলিজা কান্না থামাও।আমি তো তোমাকে ভালোবাসি। তাই তোমার কান্না আমার সহ্য হয় না।

তাও নাদিয়া কান্না করেই যাচ্ছে তাই আমি আর কোন উপায় না পেয়ে ওর আর আমার ৪ ঠোঁট এক করে দেই। ওই আমার থেকে নিজেকে ছাড়িয়ে নেওয়ার জন্য অনেক চেষ্টা করতে লাগল। কিন্তু পারল না। ২ মিনিট পর ওকে আমি ছেড়ে দেই। ছেড়ে দেওয়ার সাথে সাথেই ঠাসসসসস ঠাসসসস ঠাসসসস করে ৩ টা থাপ্পড় মারল।

পড়ুন  Bangla Valobashar Golpo Valobashi Dujone Part 15

আমিঃ নাদিয়া শান্ত হও।আমি যা করছি তোমার ভালোর জন্যই করছি।কারণ আমি তোমাকে ভালোবাসি।

নাদিয়াঃ  তুই আমাকে এখানে তুলে নিয়ে এসে আমার কি ভালো করলি? আর তুই যদি আমাকে ভালই বাসতি তাহলে আর আমাকে তুলে নিয়ে আসতি না। তুই কি জানিস আমার আব্বু আম্মু আমার জন্য কতটা টেনশনে আসে। ওহ সরি ! আমার তো মনেই ছিল না, তোকে তো তোর পরিবার বাড়ি থেকে বের করে দিছে। তাহলে তুই কি ভাবে বুজবি ? তুই যেমন  না জানি তোর বাবা-মা কেমন ?  আসলে দোষটা তোর না।দোষটা তোর বাবা মার, কারণ তারাই তোকে জন্ম দিছে। 

{ Heart Touching Emotional Sad  Love Story }

নাদিয়ার কথা গুলো আমি চুপ করে শুনতেছিলাম।ওর কিছু কিছু কথা খারাপ লাগলেও চুপ করে ছিলাম কিন্তু ওই যখন আব্বু আম্মুর নামে খারাপ কথা গুলো বলল তখন আর চুপ করে থাকতে পারলাম না। তাই নাদিয়ার গালে ঠাসসসসস ঠাসসসসস ২ টা থাপ্পড় দিয়ে ফেললাম ।

আমিঃ সরি।আব্বু আম্মুর নামে খারাপ কথা গুলো বলছ তাই থাপ্পড় টা দিছি। সরি মাপ করে দিও।

আমিঃসজিববববববব,

সজিবঃজ্বী ভাই বলেন। 

আমিঃ নাদিয়া কে তার বাড়িতে দিয়ে আয়। নিজে গিয়ে দিয়ে আসবি।

সজিবঃ ওকে ভাই।

সজিব নাদিয়াকে নিয়ে গেল।আর আমি  মাটিতে হাঁটু গেড়ে বসে পড়লাম। চোখের পানিও আজ বাঁধ মানতেছে না।একটা সিগারেট ধরালাম আর ভাবতেসি সবাই শুধু আপনাকে ভুল বুঝে।

আপনারা কিছুই বুঝলেন না। তাই তো? তাহলে চলুন অতীতে……………………

Click Here For Next Part  চলবে

Writer- বিতাস প্রামানিক

Leave a Comment

Home
Stories
Status
Account
Search