Bangla Premer Golpo Mr. Fuska wala Part 3 Love Story

মি: ফুচকাওয়ালা

Amrin Talokder { Part - 03 }

তাসফি: তোমার ভাইয়া বিদেশ যেতে চায় না কেন???
প্রিয়া: সেটা তো জানি না, তবে সে নাকি কাকে ভালোবাসে তাকে বিয়ে করে তার পর বিদেশ যেতে চেয়েছিল.

তাসফি: কাকে ভালোবাসে সেটা কি তুমি জানো??
প্রিয়া: হ্যাঁ আপু, কিন্তু???
তাসফিঃ কি কিন্তু আমাকে বলো?

Bangla Premer Golpo

প্রিয়া: আপু আমাকে কিছু বলবে না তো, আমার খুব ভয় করছে, যদি তুমি কিছু বলো।
তাসফি: না আপু তুমি বলো, আর তুমি আমাকে ভয় পাও কেন.??আমাকে ভং পেতে হবে না তোমায়, নিঃসন্দেহে বলতে পারো।।
প্রিয়া: ভাইয়া তোমাকে অনেক ভালোবাসে, তোমাকে বিয়েও করতে চেয়ে ছিল, কিন্তু তুমি নাকি তার ভালোবাসা বুঝো না। আর এরই মাঝে তার বাবা মা তাকে জোর করে বিদেশ পাঠিয়ে দেয়।
তাসফি:........

প্রিয়া : আপু আমার কোন দোষ নেই, প্লিজ আমাকে কিছু করো না।
তাসফি: আরে তোমাকে আমি আবার কি করবো হুমমম।
প্রিয়া: না তুমি যেরকম করছো যদি কিছু করো?
তাসফি : আচ্ছা তোমার ভাই সত্যি কি আমাকে ভালোবাসাতো হুমম।

প্রিয়া: জানি না কতটা ভালোবাসতো,তবে...
তাসফি: তবে কি হুমম বলো।
প্রিয়া: তবে তোমাকে অনেক ভালোবাসে, আমার মনে হয়,তোমার কি মনে হয় আমি জানি না।
তাসফি:ওও...

আসলে সত্যি বলতে তাসফিও আমরিনকে ভালোবেসে ফেলেছে এই কয় দিনে কিন্তু তার পরিবারের জন্য সে রিলেশনে যেতে চাচ্ছে না। কিন্তু মন তো মানে না তাই তার ভালোবাসা সে প্রাধান্য দিতে তার খোঁজ নিতে গিয়ে শুনে সে বিদেশ…

তার এই দুঃখ রাখবে কই,জিবনে এই প্রথম কাওকে ভালো লেগে ছিল, কিন্তু তাও হারিয়ে ফেললো, জানে তাসফি আমরিনকে পাবে কিনা।
তাসফি: আমি আমরিনের জন্য অপেক্ষা করবো, আমার প্রথম ভালোবাসাকে আমি জয় করে ছারবোই।আমি যদি আমরিনকে না পাই তাহলে এই পৃথিবীতে আর থাকবো না। (আরো অনেক কিছুই ভাবতেছিল মনে মনে))

প্রিয়া: আপু কি ভাবতেছে,প্রায় ২০ মিনিট হয়ে গেল আমাকে এরকম ভাবে বসিয়ে রাখছো,কিছুতো বলো।
তাসফি: (প্রিয়ার কথায় তাসফির ঘোর কাটে, তাসফির মনেই নেই যে সামনে প্রিয়া বসে আছে।আর এতক্ষণ ধরে প্রিয়াকে তার সামনে বসিয়ে রেখে ছিল, সে খায়ালো হারিয়ে ফেলছে) ওহহহহ হ্যাঁ প্রিয়া তুমি, তো এখন তুমি যেতে পারো।

Bangla Valobashar Golpo

প্রিয়া: আচ্ছা আপু আমি তাহলে আসি?
তাসফি : এই দারাও
প্রিয়া: জ্বি আপু বলো.
তাসফি: তোমার ভাইটা আসবে কবে দেশে।
প্রিয়া : তা তো জানি না, তবে পরাশুনা শেষ করে সেখানেই নাকি জব করবে বলেছে, আর নাকি দেশে আসবে না।
তাসফি : কেন আর দেশে আসবে না কেন,হুমম, কি হয়েছে যার জন্য আর দেশে আসবে না

প্রিয়া: তা তো জানি না, তবে আমার ধারণা তোমাকে না পাওয়ার জন্য হয়তো বা,
তাসফিঃ আচ্ছা তোমার ভাই কোন দেশে গেছে তুমি কি তা জানো.?
প্রিয়া: জ্বি, আমেরিকা গেছে লেখাপড়া কম্পিলিট করতে।
তাসফি: আচ্ছা তোমার ভাইয়ের নাম্বার টা দিও তো।
প্রিয়া : এখনই নিবে??

তাসফি: তোমার কি মুখস্থ আছে। থাকলে দাও।
প্রিয়া: আচ্ছা দিব তার আগে একটা কথা বলবে আপু।
তাসফি: কি বলো???
প্রিয়া: আসলে আপু তুমিও কি ভাইয়াকে ভালোবাসো, আর যদি ভালোবেসে থাকো তাহলে মেনে নিলে না কেন??

তাসফি : এই তোরো যা বলছি তা দে, তোর এত কথা কেন হুমমম,থাপ্পড় মেরে দাঁত ভেংগে দিব।
প্রিয়া এমনেই তাসফিকে যমের মত ভয় পায়।আর এরকম ধমক দেওয়াতে সে জ্ঞান হারিয়ে ফেলে।
তাসফি প্রিয়ার অবস্থা দেখে তো ভয় পেয়ে গেছে, আমাকে এতটা ভয় করে মেয়েটা সামান্য ধমকেই জ্ঞান হারিয়ে ফেলছে, এখন যদি কিছু হয়ে যায় তাহলে কেমন হবে। এসব ভাবতেই তাসফি রিতি মত ঘেমে যাচ্ছিল।
এরই মাঝে তার বন্ধু হিয়া এসে উপস্থিত, আর প্রিয়ার এরকম অবস্থা দেখে তো হিয়া রাগে ফায়ার,।

Bangla Love Story

হিয়া: তাসফির বাচ্চা তুই কি করেছিস আমার বান্ধবীকে,জ্ঞান হারিয়ে ফেলছে কেন, এখন যদি ওর কিছু হয় না তোর খবর আছে দেখে নিস।
তাসফি: এই আমি তোর বড় বোন কথা সাবধানে বলিস, না হয় তোর এই বান্ধবীর মতো তোকেও অজ্ঞান করে দিব।

হিয়া: কি বললি তুই আমাকে জ্ঞান হারিবি, তবে রে দারা।

হিয়া প্রিয়াকে সুস্থ না করে তাসফির সাথে যাচ্ছে মারা মারি করতে, তাসফি আর হিয়ার মাঝে প্রতিদিন মারামারি হবেই কিছু নিয়ে। তো আজকের ঝকড়া ভিন্ন, কিন্তু ঝকড়ার সময় তার মা এসে পরায় ঝকড়াটা লাগতে পারে নি, তাদের মা কে তারা আবার অনেক ভয় পায়।

তাসফির আম্মু: কিরে হিয়া তোর বান্ধবী হিয়া এভাবে পরে আছে কেন মাটিতে, কি হয়েছে। আর তোরা হিয়াকে না তুলে ঝকড়া করছিস কেন।
হিয়া: আসলে আম্মু তোমার বড় মেয়ে সব করেছে,তোমার বড় মেয়ের জন্য প্রিয়াকে আসতে বলে ছিলাম, কিন্তু এমন করবো তা কখনও ভাবি নি।

তাসফির আম্মু: তাসফি হিয়া যা বলছে তা সত্যি??
তাসফি: জ্বি আম্মু, কিন্তু প্রিয়া আমাকে দেখে এত ভয় পায় তা আমি জানি না, জানলে ধমক দিতাম না।

তাসফির আম্মু : কিহহহ্ তোর জন্য মেয়েটা এসেছে আমাদের বারিতে আর তুই তাকে এবাবে অপনাম করেছিস,
তাসফি: আম্মু আমি তো অপমান করিনি।
তাসফির আম্মু: তাহলে কি করেছিস, কেন এই মেয়ে এভাবে পরে আছে, আর একে তারাতারি জ্ঞান ফিরা। তার পর এটা নিয়ে কথা হবে।

তার পর হিয়া তারাতারি করে পানি নিয়ে এসে প্রিয়ার চোখে ছিটিয়ে দেয়,
চোখে পানি তেওয়াতে প্রিয়ার আস্তে আস্তে জ্ঞান ফিরে আসে,আর জ্ঞান ফিরার পর..........জানতে চাইলে অপেক্ষা করবেন, না তার দরকার নেই এখনই বলে দেই।

Bangla Golpo

প্রিয়া: আআআআআআ, নননননননাাা আপু আমাকে কিছু করো না, প্লিজ আমি মরে যাবো, আমার বিয়ে হয় নি, বিয়ে হওয়ার আগেই আমার স্বামী বউ হারা বিধবা হবে আর আমার সন্তান গুলো এতিম হয়ে যাবো গো আপু আমাকে কিছু করো না,
হিয়া: এই প্রিয়া প্রিয়া, কি হয়েছে রে আপু তো এখানে নেই, আমি তোর বান্ধবী হিয়া, এভাবে কি আবল তাবল বকছিস। কি হয়েছে বলতো আমাকে শুনি।
প্রিয়া :.......... …....……………………

আপনারা তো শুনেছেন কি হয়েছিল তাসফি কি বলেছিল,সেগুলোই বললো হিয়া কে।
প্রিয়ার কথা শুনে হিয়া হাসবে না কি কাঁদবে ভেবে পাচ্ছে না।

প্রিয়া: কিনে তুই হাসতেছিস নাকি কাঁদতেছিস,বুঝতেছি নন কিন্তু হুমম।

হিয়া: আরে থাম, মাত্র সামান্য কাহিনি নিয়ে জ্ঞান হারাতে হবে, আর তাসফি আপু কি বাঘ না ভাল্লুক, যে তাকে দেখে ভয় পেতে হবে।
প্রিয়া : আসলে তা না তবে কেন যেন আপুকে দেখলে ভয় চলে আসে।
হিয়া: আচ্ছা তোর ভাইয়ের নাম্বার কি তুই জানিস,
প্রিয়া: হ্যাঁ কিন্তু কেন?
হিয়া: দারা দেখবি মজা। তার পর বুঝবি কেন।

হিয়া: আপু আপু ও বড় বোইন কই গেলা গো।
তাসফি: কি ব্যপার হিয়া এরকম ভাবে ডাকছে কেন?
এরকম করে ডাকার লক্ষণ তো ভালো হয় না। কি এমন করতে এভাবে ডাকছে? (এই সব ভাবতেছে মনে মনে)
হিয়া: আপুরে
তাসফি: কিরে এরকম ভাবো ডাকছিস কেন।

হিয়া : তোমার নাগর তো বিদেশ তার নাম্বার কি তোমার লাগবে??

তাসফিঃ মানে কি বলছিস হিয়া, তোর কিন্তু লিমিট ছেরে যাচ্ছিস,
হিয়া : আচ্ছা তুমি থাকো তোমার লিমিট নিয়া, আমি আর আমার বান্ধবী গেলাম আমার লিমিট নিয়ে, বান্ধবীকে বলে দিব তোমাকে যেন নাম্বার না দেয়,
তাসফি: তিয়ার বাচ্চা হিয়া।

হিয়া: ওরে আমার সোনা বোন বলো।নাগরের নাম্বার লাগবে বুঝি।
তাসফি: হিয়া সত্যি সত্যি কিন্তু তোর লিমিট ক্রস করতেছিস,ভুলে যাস না আমি তোর বড় বোন।
হিয়া: হুহু,জানি তুমি আমার বড়,কিন্তু আমার বান্ধবীকে আমার দিয়ে ডেকে এনে তাকে তার বড় ভাইয়ের খোঁজ নেওয়া কোন ধরনের ভদ্রতা।আর বলেনি বলে তাকে ধমক দিয়ে জ্ঞান হারিয়ে ফেলে দিছো,এই সব বাবা মাকে বলবো কি??
তাসফি:...........…………

Click Here For Next :চলবে

Writer :- Amrin Talokder

Leave a Comment