মুখোশ – রহস্যময়, রোমান্টিক প্রেমের গল্প পর্ব ৪ | মোনা হোসাইন

Mukhosh

Mona Hossain { Part 4 } recap


( মনার বদলে রুহি দিলাম নায়কার নাম )

রুহি এর আগে কখনো কারও সাথে এভাবে ঘুড়ে নি, তারউপড় শহরে এসে তো তার প্রায় দম বন্ধ অবস্থা হয়ে গেছিল তাই রাজের সাথে সময় কাটিয়ে ভালই লাগছে তার।

রুহিকে গাড়িতে তুলে রাজ ড্রাইভইং এ মন দিল।
রুহির বেশ লম্বা চুল, তাও খোলা। তারমধ্যে রুহি শাড়িতে অভ্যস্থ না আর গাড়ির জানালা খোলা থাকায় শাড়ি আর চুল ২ টাকে একসাথে সামলে উঠতে পাড়ছে না সে।
রুহি সমানে চেস্টা করে যাচ্ছে সব ঠিক রাখার কিন্তু কখনো শাড়ির আঁচল উড়ে যাচ্ছে আবার কখনো চুল এসে চোখে মুখে পড়ছে।

রাজ গাড়ি থামিয়ে দিল

রাজঃ এই ইডিয়েট কি করছো এগুলা? একটু ঠিক হয়ে বসতে পাড়ছো না?কখনো শাড়ি উড়ে যাচ্ছে, কখনো আবার চুল? কখন যে নিজেই উড়ে যাবে সেটাই বোঝতেছি না।

রুহিঃআমি কি করব এগুলা তো কোনভাবেই ঠিক হচ্ছে না।

রাজঃ হুম বোঝলাম গাড়ি থেকে নামো ঠিক হয়ে যাবে।

রুহিঃ আমাকে নামিয়ে দিয়ে চলে যাবেন?

রাজঃ হুম...তাড়াতাড়ি নামো।

রুহিঃ রাত হয়ে গেছে রাস্তায় এভাবে একটা মেয়েকে রেখে যাওয়া উচিত না।

রাজঃ নামবে কি? (ধমক দিয়ে)

রুহিঃ একটু এলমেলো হয়ে গেছি বলে সত্যি সত্যি নামিয়ে দিল....!!! হাহ কপাল।

রুহিকে নামিয়ে দিয়ে রাজ নিজেও নেমে এসে রুহিকে অবাক করে দিয়ে রুহির শাড়ির কুচি ঠিক করে দিল, আঁচল টা কোমড়ে গুঁজে দিল তারপর চুল গুলি খোঁপা করে দিল।
রুহি অবাক হয়ে স্টেচোর মত দাঁড়িয়ে থাকল

রাজঃ এবার এসো....

রুহি সিটে বসতেই রাজ সিট বেল্ট পড়িয়ে দিল

রাজঃএবার সব ঠিক আছে তো নাকি?
রুহিঃ হুম
রাজ গাড়ি সার্ট দিল।

রুহিঃ জানেন আমার না খুব ভাল লেগেছে সবকিছু....

রাজঃ তাই...???

রুহিঃ হুম আমি কখনো মেলায় যাইনি আসলে আমি সারাজীবন পড়াশুনার পিছনেই পড়ে ছিলাম বাইরের জগত অনেকটাই আমার ওদেখা।

রাজঃ আমি সবটা দেখিয়ে দিব।

রুহিঃ আমরা কি ভাল বন্ধু হতে পাড়ি?
কিন্তু সকালে মাঠে যেমনটা করলেন তেমন বন্ধু না।বোঝেছেন তো?

পড়ুন  ভিলেন – থ্রিলার প্রেমের গল্প পর্ব 17 | Villain Action Story

রাজ কিছু বলল না।

হলের সামনে এসে রাজ রুহিকে নামিয়ে দিয়ে বলল রুমে যাও আমি আসছি।

রুহি রুমে গিয়ে ফ্রেস হয়ে যখন পড়তে বসবে, তখনি রাজ এসে চুড়ির ট্রে গুলি আর অনেক গুলি চকলেট দিল রুহিকে।

রুহি এতক্ষনে রাজের প্রতি অনেকটাই দুর্বল হয়ে গেছে।তাই চকলেট নিয়ে খেতে শুরু করল রাজ একটু হেসে নিজের রুমে চলে গেল।

রাজ নিজের রুমে বসে ল্যাপটপে মুখ গুঁজে ছিল হঠাৎ তার কানের কাছে ঝুন ঝুন শব্দে মুখ তুলে তাকাতেই দেখল রুহি হাত ভর্তি কাচের চুড়ি পড়ে তার কানের কাছে ঝুন ঝুন শব্দ করছে।

রুহিঃ কেমন লাগছে আমায়।

রাজঃ এর আগে আমি এমন মেয়ে দেখিনি।

রুহি হেসে দিল। আমার চুড়িগুলি খুব পছন্দ হয়েছে।

রাজঃ এত সহজ সরল মেয়ে আমি কখনো দেখিনি।এত দামি চুড়ি কিনে দিলাম সেটার দিকে খেয়াল নেই তার কিনা কাঁচের চুড়িই পছন্দ হল (মনে মনে)
,
,
চকলেট খেয়েছো

রুহিঃ হুম....

রাজঃভাল,যাও এখন নিজের রুমে যাও। এখন এই ঘরে থাকলে সবাই খারাপ কথা বলবে।

রুহিঃ আমিত চুড়ি দেখাতে এসেছিলাম।কে কি বলবে?

রাজঃ না কেউ কিছু বলবে না। দেখানো হয়ে গেছে এখন যাও।

রুহিঃ আচ্ছা

পরদিন সকালে রুহি সাদা একটা জামা পড়েছে।রাজ ওকে সব রং এর চুড়িই দিয়েছে সেখান থেকে জামার সাথে মিলিয়ে সাদা চুড়ি পড়ে একটু সাজগোজ করে ক্লাসের জন্য বের হল
লিফটে গিয়ে রাজের সাথে দেখা,লিফটে রাজ আর রুহি ছাড়া কেউ নেই। কালকের ঘুরাঘুরির পড়ে রুহির ভয় ভেংগে গেছে তাই সে বেশ সাছন্দেই আদির সাথে নামছিল।

কিন্তু হঠাৎ করেই লিফট বন্ধ হয়ে গেল।
রুহি ভয় পেয়ে গেল কি হল লিফট বন্ধ হয়ে গেল কেন?

রাজঃ আমাকে দেখে কি লিফটের মেকানিক মনে হচ্ছে?

রুহি বোঝল প্রশ্ন করে লাভ নাই।আসলে লিফটে আমার দম বন্ধ হয়ে আসে।

রাজঃ সিঁড়ি দিয়ে নামতে আমি, মানা করছিলাম নাকি?
রুহিঃকি আজব ধরনের জবাব,

রাজঃ অদ্ভুদ প্রশ্নের সঠিক উত্তর।

রুহিঃ কিছু একটা করেন....এখান থেকে বের হতে হবে না?

রাজঃ না আমার ভালই লাগছে।

রুহিঃ কিন্তু আমার সাজ নস্ট হয়ে যাচ্ছে। আর কস্টও হচ্ছে।

রাজঃতাই নাকি আমি ঠিক করে দিব?

পড়ুন  ভিলেন পর্ব 85 - প্রেমের গল্প | Romantic Premer Golpo

রুহিঃ যা করার তাড়াতাড়ি করুন আমার সত্যিই খারাপ লাগছে।

রাজ রুহিকে একটানে কাছে এনে বুকে জড়িয়ে নিল তারপর কপালে ভালবাসার পরশ এঁকে দিল।
রুহি অবাক হয়ে লিফট বন্ধ হওয়ার কথা ভুলে গেল।কিছুক্ষন পর লিফট চালু হয়ে গেল।

রুহিঃ এগুলা কোন ধরনের বিয়াদবি?

রাজঃ তুমি ই না বল্লে ঠিক করে দিতে। তাই তো দিলাম।

রুহিঃ দেখুন....

রাজঃ লিফট এক্ষুনি খোলে যাবে এখন কিছু দেখানোর দরকার নাই রুমে গিয়ে দেখব কেমন?

রুহিঃ এত খারাপ ছেলে আমি জীবনে দেখি নি।

রাজঃ কেবল তো শুরু,একা একা কখনো আমার সামনে আসবনা বোঝেছো।

রুহিঃ তো আমার কি বডিগার্ড আছে নাকি যে আমার সাথে সাথে হাঁটবে।

রাজ একটু হাসল,

তুমি কিছুদিনের মধ্যেই আমার সম্পত্তি হতে চলেছো রুহি (মনে মনে)আমার যখন যা ইচ্ছা তাই করব তুমি নিজেই করতে দিবে....শয়তানি হাসি দিয়ে

লিফট খুলতেই রুহি দৌড়ে ক্লাসে চলে গেল।

রাজঃবোকা মেয়ে আমার কাছ থেকে কোথায় পালাবে তুমি?আমি তোমাকে ঠিক সাইজ করে নিব।

রাজ যখন দেখেছিল রুহি লিফটে একা ঢুকছে তখনি তার বন্ধু মাহিরকে টেক্সট করে বলেছিল লিফট বন্ধ করে দিতে। মাহিরো তাই করল যার সু্যোগে রাজ রুহিকে একটু কাছে পেল।
রুহি যথারীতি গিয়ে পিছনে গিয়ে বসলো।

ক্লাসে ঢুকেই রাজের মেজাজ খারাপ হয়ে গেল রুহিকে পিছনে বসতে দেখে।
রাজ গিয়ে রুহিকে টানতে টানতে সামনে নিয়ে এলো বলেছি না আমার পাশে বসবা।

রুহিঃ এটা বল্লেই তো হত। হাত ধরে টানতে টানতে চুড়িগুলোই ভেংগে দিলেন,ধুর ভাল লাগে না।

রাজঃ আচ্ছা গাল ফুলাতে হবে না আবার কিনে দিব।
রুহিঃ উহু লাগবে না....আমার অনেক আছে হুম।

রাজঃ বিকালে ফোচকা খেতে যাবে?

রুহিঃ হুম হুম.... না না না....

রাজঃ এটা কেমন উত্তর....

রুহিঃ প্রথম ভেবেছিলাম যাব কিন্তু যাব না।

রাজঃ কেন?

পড়ুন  Cute Love Story Mamato Boner Bandhobi Jokhon Crush Part 2

রুহিঃ আপনি খারাপ কিছু করবেন তাই।

রাজঃ সেটাত এখানেও করতে পাড়ি দেখবে...???

রুহিঃ না না দেখতে চাই না ঠিক আছে যাব।

রাজঃ দুপুরে নিজের হাতে খাইয়ে দিবে?

রুহিঃকেন আপনার হাত নাই বোঝি...???

রাজঃ বউয়ের হাতে খেতে চাই।

রুহিঃ না এসব পাড়ব না আর কে কার বউ?

রাজঃ তাহলে আমিও পারব না নিজেকে কন্ট্রোল করতে। এখানে সবার সামনেই....দেখিয়ে দিব কে কার বউ ।

রুহিঃ না না না কিছু করবে না প্লিজ। খাইয়ে দিব।

এভাবেই শুরু হলো রাজ রুহির প্রেম।প্রেমের ৩ মাস হয়ে গেছে। প্রথম দিকে রাজ জোর করেই রুহিকে সব করাত কিন্তু এখন আর জোর করতে হয় না রুহি নিজেই রাজের প্রেমে হাবুডুবু খাচ্ছে।

কারন রাজ রুহির খুব খেয়াল রাখে কোন ছেলেকে রুহির কাছে ঘেষঁতে দেয় না।রুহি যখন যা চায় তাই করে রাজ।
রাজ ৩ মাস আগেই হল ছেড়ে চলে গিয়েছিল জাস্ট একদিন ছিল। আর যাওয়ার সময় নিজের রুমটা রুহিকে দিয়ে যায় আর হল সুপারকে বলে রুহিকে যেন বলে যে লাকি ড্রো এর মাধ্যমে রুহিকে সিলেক্ট করা হয়েছে তাই তার থাকা খাওয়া একদম ফ্রি।

রাজ রুহির খুব খেয়াল রাখে রুহিও রাজের কথামত চলে। রুহি প্রতিদিন রাজের দেওয়া চুড়ি পড়েই ভার্সিটিতে আসে রাজের পাশে বসে ক্লাস করে দুপুরে একসাথে খায়। রাজকে খায়িয়ে দেয় রাজ রুহিকে রুমে পৌছে দিয়ে আসে।প্রায়েই বাইরে ঘুরতে নিয়ে যায়।রুহির এখন শহরটাকে অনেক ভাল লাগে কারন সবাই তাকে রাজের জিএফ হিসেবে অনেক সম্মান করে।
রাজও তাকে খুব ভালবাসে ২ জনের মধ্যে বিশাল ভালবাসা।
রুহি রাজকে মন থেকে ভালবেসে ফেলেছে....
কিন্তু রাজ কি রুহিকে সত্তিই ভালবাসে....???

পরবর্তী পর্বের জন্য ক্লিক করুন :>> চলবে

Writer :- মোনা হোসাইন

Leave a Comment

Home
Stories
Status
Account
Search