মুখোশ সিজন ২ – রহস্যময় প্রেমের গল্প পর্ব ৪ | মোনা হোসাইন

#মুখোশ
#সিজন_২
#পার্টঃ৪
#লেখিকাঃ Snigda Hossain Mona

রাজ বোঝল এই মেয়েটা হারিয়ে গেছে। ম্যানেজার কে বলে ওর মাকে খোঁজে বার করতে হবে।রাজ যখন এসব ভাবছে,তখন মেয়েটা বলল আমাকে কোলে নাও।
রাজ অবাক হয়ে তাকাল।
রোজঃ আমার ঘুমের সময় হয়ে গেছে তোমার কোলে ঘুমাব।
কথাটা শুনে রাজের বাচ্চাটার জন্য একটা ভাল লাগা কাজ করছে।
সে বাচ্চাটাকে কোলে নিল।আর আদর করে ঘুম পাড়িয়ে দিল।
বাচ্চাটাকে শুয়িয়ে সে ম্যানেজারকে বলতে যাবে তখনি সামনে তাকিয়ে দেখে পিউ নিজের ডেস্কে বসে কাঁদছে….
রাজঃ এই মেয়ের আবার কি হল কাদঁছে কেন?

রাজ পিউ কে নিজের রুমে ডেকে পাঠাল।
পিউ এর আসতে ইচ্ছা করছিল না তবুও বসের অর্ডার বলে কথা তাই আসল।

এসেই পিউ কর্কশ সুরে বলে উঠল ডাকছেন কেন?
রাজ পিউ এর এই কর্কশ কন্ঠ শুনে কিছুটা অবাক হল কারন সে পিউকে এখুনো কিছুই বলে নি তাই রাগারাগির কারন খুঁজে পাচ্ছে না।

রাজ নিজেকে সামলে নিয়ে বলল কাঁদছ কেন? কি হয়েছে?

পিউঃ আমি কখন হাসব আর কখন কাঁদব তার কসয়ফত কি আপনাকে দিতে হবে নাকি জোরে চেঁচিয়ে বলল।

রাজঃ আহ এত চেঁচানোর কি হল আমি খারাপ কি বল্লাম?বাচ্চাটা ঘুমাচ্ছে দেখতে পাচ্ছ না ভয় পাবে তো।
পিউঃ বাচ্চা…!!!কোথায় বাচ্চা? তখনি সে সোফার দিকে তাকাল।

আর চিৎকার করে বলল কি হয়েছে ওর? আপনি ওর সাথে কি করেছেন?

রাজ তো অবাকের সপ্তম আকাশে।

পিউঃ আপনাকে থাপ্পড় মেরেছি বলে তার শোধ এই ছোট্ট মেয়েটার উপড় নিলেন ছি আপনি কি মানুষ? বলতে বলতে সে রোজ এর কাছে গিয়ে ডাকতে লাগল।

রাজ দৌড়ে এসে বাধাঁ দিয়ে বলল আহ কি করছো মেয়েটা কেবল ঘুমালো।ওকে এভাবে ডাকার মানে কি?

পিউঃ একটা কথাও বলবেন না ওর সাথে কি করেছেন তাড়াতাড়ি বলুন আমি কিন্তু পুলিশের কাছে যাব।

রাজের আর সহ্য হল না
রাজঃ তখন থেকে কি ফালতু কথা বলে যাচ্ছ? এমন ভাবে বলছো যেন পৃথবীতে তোমার একটাই শত্রু আর সেটা আমি। আমি তো রোজ কে চিনতাম এই না আমি না থাকলে ও এতক্ষনে ডুবায় থাকত।ধমক দিয়ে বলল রাজ।আমি ওর সাথে খারাপ কিছু কেন করব?

এরমধ্যেই রোজ জেগে গেল আর মাম্নাম বলে পিউকে জড়িয়ে ধরল।

রোজের মুখে কথাটা শুনে রাজের পায়ের নিচ থেকে মাটি সরে গেল।

রাজঃ তারমানে ও রুহির মেয়ে….??? না এটা হতে পাড়ে না।রুহি তুমি এটা কিছুতেই করতে পারো না।আমি তোমার স্বামির কাছ থেকে তোমাকে কেড়ে নিতে পারব কিন্তু এই ফুটফুটে মেয়েটার কাছ থেকে কি করে তোমাকে ছিনিয়ে নিব….???
রাজ বড়সর থাক্কা খেল।

পিউঃ চলো এখান থেকে…. তুমি এখানে কি করছো ধমক দিয়ে বলল।

তখন পিউ আর রাজ ২ জনকেই অবাক করে দিয়ে রোজ সোফা থেকে নেমে রাজের পিছনে গিয়ে লুকিয়ে মুখ বের করে পিউ কে বলল যাব না তোমার সাথে।
রাজ তো অবাক নিজের মার কাছে না গিয়ে আমার কাছে আশ্রয় নিচ্ছে।
রোজ এতই ছোট যে সে রাজের হাঁটু সমান ও না। তাই সে রাজের পা জড়িয়ে আছে।রাজের সেটা কেমন জানি অসস্তি লাগল তাই সে একটানে রোজ কে কোলে নিয়ে নিল।

পড়ুন  School Life Bangla Romantic Story School Jiboner Prem Part 3

রাজঃ তাই বোঝি…??তাহলে আমার কাছে থাকবে?

রোজ রাজের গলা জরিয়ে বলল হুম।মাম্মাম আমায় আদর করে না।আমায় ছেড়ে শুধু চলে যায়।
রাজঃআচ্ছা আমি ওকে বকে দিব কেমন?

রোজ খুশি হয়ে রাজকে চুমু খেল।

পিউ এসব দেখে তেলে বেগুনে জ্বলছে।
পিউঃ এখানে কি সিনেমা হচ্ছে? আমি তোকে আদর করি না?আয় আমার কাছে মজা দেখাচ্ছি বলে রোজ কে নেওয়ার জন্য পিউ হাত বাড়াল।
তখনি রাজ ঘোরে গেল পিউ রোজ ধরতে পাড়ল না।রোজ তাতে বেশ মজা পেল আর হাসতে শুরু করল।

রাজঃ গম্ভির গলায় বলল এটা আপনার বাড়ি নয় মিসেস পিউ।কাজে যান।

পিউঃ কাজে যাব মানে? আচ্ছা ওকে দিন চলে যাচ্ছি।

রাজঃ অফিস আওয়ার শেষ হোক এসে নিয়ে যাবেন।

পিউঃ কিসব বলছেন?ওকে আমি আপনার কাছে রেখে যাব না।

রাজঃবাচ্চা নিয়ে খেলা করার জন্য আপনাকে সময় দিতে পারছি না সরি। কালকের ফাইল গুলি কমপ্লিট করে এখুনি নিয়ে আসুন যান।আর ওকে আপনি রাখার কে ও নিজেই থাকতে চাচ্ছে, আপনি সময় নষ্ট করছেন।
অফিসের এগ্রিমেন্ট এ সাইন করার আগে এগুলো ভাবা উচিত ছিল যে আপনি অফিস টাইম মেন্টেইন করতে পাড়বেন না।

পিউ বাধ্য হয়ে নিজের ডেস্কে ফিরে গেল কিন্তু তার দৃষ্টি এদিকেই।সে বার বার রাজের রুমের দিকে তাকাচ্ছে।রাজ আর পিউ এর ডেস্কের মাঝখানে শুধু একটা গ্লাস তাই সব দেখা যায়।

রাজ পিউ এর জন্য রোজ এর সাথে বেশি মিশতে পাড়ছে না তাই রাজ অফিসের ফোন এ ফোন করে বলল মিসেস পিউ…. আমাকে দেখার জন্য আপনাকে অফিসে চাকরি দেওয়া হয় নি কাজে মন দিন বলেই ফোন কেটে দিল।

পিউঃ অসভ্য লোক আপনাকে কে দেখছে আমি তো রোজকে দেখছিলাম।বিড়বিড় করতে করতে।তারপর লজ্জায় আর সেদিকে তাকাতে পাড়ল না।

কিছুক্ষন পর রাজ আবার ফোন দিল,

রাজঃ রোজ এর ক্ষুদা পেয়েছে। আপনার দুধ খেতে চাচ্ছে এসে খায়িয়ে দিয়ে যান।

পিউঃ হোয়াট…..??? রেগে গিয়ে বলল।

রাজঃ খারাপ কি বল্লাম এত রিয়েক্ট করার কি আছে?

পিউঃ আমার মানে…??

রাজঃ আপনার মানে আপনার হাতে।বাচ্চারা সারাজীবন তার মার হাতেই দুধ খায় অন্তত আমি তো সেটাই জানি রোজ ও সেটাই জানে আপনি জানেন না বোঝি?ফালতু কথা বাদ দিয়ে কিচেনে যান দুধ বানিয়ে নিয়ে আসুন আর হে আপনি আমার পার্সনাল এসিস্ট্যান্ট তাই আমি যা বলব সেটাই আপনার ডিউটি মাথায় ঢুকিয়ে নিন।

পিউ মনে মনে রাজকে হাজার টা গালি দিতে দিতে দুধ বানিয়ে নিয়ে আসল।

পিউঃ নাও খেয়ে উদ্ধার করো আমায়।
রোজ রাজের কোলে বসে গেম খেলায় ব্যাস্ত।

পিউঃ আমি কিছু বলছি কথা কানে যাচ্ছে না?

রাজঃ সি ইজ মায় গেষ্ট ভদ্রভাবে কথা বলুন।

পড়ুন  বেপরোয়া ভালোবাসা – পর্ব ৩০ রোমান্টিক গল্প | মোনা হোসাইন

পিউঃঅহ আচ্ছা ম্যাডাম আপনি কি খাবেন?

রোজঃএত তাড়া কিসের গেম খেলছি দেখতে পাচ্ছ না চুপচাপ বসো পড়ে খাচ্ছি।

পিউঃ রোজ তুমি ভুলে যাচ্ছ তোমার বাসায় ফিরতে হবে তখন তোমাকে পাহাড়া দেওয়ার জন্য ইনি থাকবেন না।
রোজ এবার ভয় পেয়ে গেল সে ভিতু দৃষ্টিতে রাজের দিকে তাকাল রাজ তাকে খাওয়ার জন্য ইশারা করল।এই সময়ের মধ্যেই রোজ আর রাজের মধ্যে বেশ বন্ধুত্ব হয়ে গেছে।

রোজ ফোন রেখে ২ হাত বাড়িয়ে দিল।

পিউঃ উনার কোল থেকে নেমে এসো তারপর কোলে নিচ্ছি।
রোজ তাড়াহুড়ো করে নামতে গিয়ে পড়ে গেল।
পিউ অবাক হয়ে গেল।
কারন পড়ে গিয়ে যেন রোজ নয় বরং রাজ ব্যাথা পেয়েছে রাজ কে দেখে সেটাই মনে হচ্ছে।

রাজঃ এবার শান্তি হয়েছে? এতটুকু একটা বাচ্চার সাথেও জেদ দেখাতে হয় যতসব।বলেই রোজ কে টেনে তুলল।মামুনি কোথায় লেগেছে দেখি।

পিউ গিয়ে রোজকে কোলে নিয়ে বলল,সরি আম্মু আমি বোঝতে পাড়ি নি।

আদর করতে করতে রোজ কে নিয়ে পিউ সোফায় বসল। হাজার কথা বলে বলে সে তাকে খাওয়াচ্ছে।
রাজ ওদের দিকে এক দৃষ্টিতে তাকিয়ে আছে। কি অপরুপ এই দৃশ্য যদি সেদিন ভুল না করতাম তাহলে আমারো এমন একটা মেয়ে থাকত।এমন একটা সুখি পরিবার আমারো হত। কথাগুলি ভাবতে ভাবতে রাজের বুকের ভিতর হাহাকার শুরু হয়ে গেল।চোখ ভিজে আসছে তার।

হঠাৎ রাজের ধ্যান ভাংগল রোজ এর আদো আদো কথায়।
রোজ পিউ কে বলছে।
মাম্মাম দেখো এখানে আমার ডলির জন্য একটা ঘর রাখব আর এখানে টেডি রাখব।আর ওখানে চকলেট বার বানাব ঠিক আছে?

পিউ কি বলবে বোঝতে পারছে না।কারম রোজ সারা রুম জোরে দোড়াচ্ছে আর ঠিক করছে কোথায় কি রাখবে যেন অফিস টা তার বাবার।
পিউ ঠিক আছে মাম্মাম সেসব পড়ে দেখা যাবে এখন এদিকে এসো খেয়ে নাও প্লিজ আমার অনেক কাজ আছে।
রোজের কান্ড দেখে রাজ নিজের অজান্তেই হেসে ফেলল।সে চেয়ার থেকে উঠে গিয়ে রোজকে ধরে ফেলল।আর কোলে নিয়ে নিল।

পিউঃ কি করছেন?

রাজঃ অনেক খাইয়েছেন থাক আর লাগবে না।মেয়ে যতটা না খাচ্ছে তার চেয়ে বেশি এনার্জি লস করছে। কিসের মা হয়েছে কে জানে বাবা। যান নিজের কাজে যান বলেই রোজকে কোলে নিয়ে রুম থেকে বেরিয়ে গেল রাজ।

পিউ বিরক্ত হলেও কিছু করার নাই রাজ,রোজ কে নিয়ে চলে গেছে পিউকে কোন কিছু বলার সুযোগ না দিয়েই বেরিয়ে গেছে।তাই পিউ বাধ্য হয়ে নিজের কাজে ফিরে গেল।মনে মনে রাজের ১৪ গোষ্টি উদ্ধার করা শেষ করেছে।

বেশ কিছুক্ষন পড়ে রাজ আর রোজ ফিরে এল।
রোজ এর হাসি যেন থামছেই না এত খুশি যেন সে আগে কখনো হয় নি।রাজো হাসছে।

পিউ অবাক হয়ে তাকিয়ে দেখছে।
রাজের কোলে রোজ কে দেখে মনে হচ্ছে যেন এটা রাজের এই মেয়ে।

পিউ কে দেখেই রোজ নিজের মুখে আংগুল দিল আর রাজের কানে কানে কি যেন বলল।
রাজ মাথা নেরে তার কথায় সম্মতি দিল।
তারপর তারা রাজের রুমে চলে গেল।

পড়ুন  Mamato Boner Bandhobi Jokhon Crush Part 1 | Cute Love Story

দেখতে দেখতে অফিস টাইম শেষ হয়ে গেল।
পিউ এসে রোজ কে টানতে শুরু করেছে।

রাজঃ আরে কি করছো?

পিউঃ চুপ একদম চুপ অনেক হয়েছে আর না।অফিস টাইম শেষ এখন আমার যা ইচ্ছা তাই করব।বলতে বলতে রোজকে টেনে হিঁচড়ে নিয়ে যাচ্ছে পিউ।

রাজ ও তার পিছন পিছন আসছে।
রাজঃ আরে ওর লাগছে তো ছাড়ো প্লিজ। আচ্ছা ঠিক আছে অন্তত কোলে তো নাও।

পিউঃ পাড়ব না সারাদিন অনেক জ্বালাইছে।এবার ওর পালা।
রোজ এর এক হাত পিউ ধরে আছে আর রোজ অন্য হাত রাজের দিকে বাড়িয়ে আছে।

রাজ এর খুব খারাপ লাগছে কিন্তু তার কিছু করার নাই রোজ বা পিউ এর উপড় তার কোন অধিকার নেই তাই চুপচাপ সহ্য করতে হচ্ছে।

রাজঃ আমার মেয়ের সাথে আমার ওয়াইফ এমন করলে, আমি তাকে নিশ্চিত ফ্লাইওভারের উপড় থেকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দিতাম।দজ্জাল মহিলারা কিভাবে মা হতে পাড়ে বোঝি না।

পিউঃ উফ আপনি একটু চুপ করবেন প্লিজ।

রাজঃ হুম করব যদি ওকে কোলে নাও।আর এখন কোলে না নিলে আমি জোর নিয়ে নিব আর ওকে নিয়ে সোজা নিজের বাড়ি চলে যাব।

পিউ রোজ কে একটানে কোলে নিয়ে বলল শান্তি হয়েছে এবার?

রাজ আর কিছু বলল না।

পিউ এর কোল থেকেই রোজ বলল এই ছেলে তোমার নামটা তো জানা হল না….. আচ্ছা কাল এসে জেনে নিব। আমি সকালে আসব কেমন? মাম্মাম আসতে না দিলে রহিম চাচাকে নিয়ে আসব আর তিনি না আসলে একাই আসব। আমার আসতে দেড়ি হলে আমাকে খোঁজতে যেও বোঝেছো না হলে আজকের মত হারিয়ে যাব।

পিউ এবার রোজ এর মুখ চেপে ধরে বলল আসাচ্ছি তোমাকে এখানে। আমি তোমার পা বেধেঁ ঘরে বন্দি করে রাখব বোঝেছো।

রোজঃ যখন পা খোলবে তখন পালাব…জানলা দিয়ে লাফ দিব।
আর আসতে দিবা না কেন ছেলেটা তো ভাল আমাকে কত আদর করল।

পিউঃ আমার মাথা ব্যাথা করছে রোজ, তুমি দয়া করে চুপ থাকো, বলেই সে টেক্সি ডাকল।

রাজ পিছন থেকে করুন সুরে বলে উঠল মিসেস আহমেদ যদি সম্ভব হয় ওকে নিয়ে আসবেন প্লিজ…অর্ডার করছি না অনুরোধ করছি। আমি ওর কোন ক্ষতি করব না কথা দিলাম।যদি সম্ভব হয় তাহলে একটু ভেবে দেখবেন প্লিজ…….

পিউ একবার রাজের দিকে তাকিয়ে চলে গেল
,
,
,
,
চলবে….!!!

Leave a Comment

Home
Stories
Status
Account
Search