প্রেম জুরি – অনুগল্প | Romantic Short Love Story Bangla

Prem Juri

Ifrat Jahan Mariyam { Short Story }


"কি করছো জানেমান?(জায়ান)
[ পিছন থেকে এভাবে জড়িয়ে ধরে ঘাড়ে মুখ গুজার কারণে কেঁপে উঠে জারা। সে জানে এ-ই ব্যক্তিটি জায়ান ছাড়া কেউ নয়। প্রতিদিনই জায়ান অফিস থেকে ফিরে কিছুক্ষণ জারাকে জড়িয়ে ধরে থাকে। কিন্তু আজ জারার কেনো জানি অভিমান হলো।]
" সরুন জায়ান। এভাবে হুটহাট জড়িয়ে ধরেন কেনো?(জারা)

"আমি কি আজকে নতুন জড়িয়ে ধরি নাকি?(ভ্রু কুঁচকে বললো জায়ান)

" সবসময় ধরতে হবে এমন তো কোনো কথা না।
" ওকে ধরলাম না, ছেড়ে দিলাম।
[জারাকে ছেড়ে দেয় জায়ান]

" আমি ফ্রেশ হয়ে আসি, খাবার দাও।(জায়ান)
[জারা কিছু না বলে খাবার দিতে চলে গেলো। জায়ান জারার অভিমান বুঝতে পেরে মুচকি হাসলো।]

" তুমি খাবে না? (জায়ান)
" নাহ, ক্ষিদে নেই।( জারা)
" ক্ষিদে না থাকলে কি আর করার। আমি বরং খাই। রান্না সেই হয়েছে।
" খান খান, মন ডুবাই খান, মন চায় উগান্ডায় পাঠাই। জোর করে খাওয়াবে তা না। ভুলে তো গেছেই। অভিমান করে আছি তাও বুঝে না।(বিরবির করে বললো জারা)
" কিছু বললে?
" নাহ।
[খাওয়া শেষে জারা গিয়ে শুয়ে পড়ে বিছানায়। প্রতিদিনকার মতো আজ আর জায়ান জারাকে বুকে নিয়ে ঘুমায়নি। সে শুয়ে শুয়ে ফোন টিপছিল। তার দেখে জারা অন্যদিকে ফিরে শুয়ে যায়।]

" জারা ঘুমিয়ে গেছো? আমি একটু বাইরে থেকে আসি।
" এখন কেনো?
" এতো কথা জিজ্ঞেস করো কেনো? দরকারেই যাবো।
[জারা আর কিছু বলে নাই। কষ্ট পায় সে]
প্রায় অনেক্ষণ পরেও যখন জায়ান আসার কোনো নাম গন্ধ নেই, বারোটাও প্রায় বেজে গেছে। জারা জায়ানকে ফোন করে।]
" হ্যালো, আপনি কোথায় জায়ান, আসছেন না কেনো?
" একটু ছাদে আসবে জারা? একটা বিপদ হয়ে গেছে।
[ জায়ানের ভয়মিশ্রিত কন্ঠ শুনে ভয় পেয়ে যায় জারা]
" আ..আসছি আমি।

জারা দ্রুত দৌড়ে ছাদে চলে যায়। সে ভয়ে ভয়ে জায়ানকে ডাকতে থাকে।
" জায়ান আপনি কোথায়। জায়ান কথা বলছেন না কেনো?

কোনো সাড়াশব্দ না পেয়ে ভয় পেয়ে যায় জারা। হঠাৎই ছাদে তারাবাজি হয়, চারদিক থেকে লাইটিং হয়ে ইঠে। চোখ বিষ্ফোরিত হয় জারার।
" জায়ান। (চিৎকার করে ডাকে জারা)
হঠাৎ বাঁশির শব্দ হয়। আকাশে তারা জ্বলে উঠে। জারা সেদিকে তাকায়। সেখানে লেখা আছে,,, Happy Birthday Jara.
অবাক হয়ে যায় জারা। হঠাৎ তার সামনে কেক নিয়ে চলে আসে জায়ান। সে বলে উঠে,,
"হ্যাপি বার্থডে মাই প্রিন্সেস, হ্যাপি বার্থডে টু ইউ।(জায়ান)
[ জারা নিজের চোখকে যেনো বিশ্বাস করতে পারছে না]
" কি হলো কুইন, এভাবে তাকিয়ে আছো কেনো? আমি জানি আমি একটু বেশিই সুন্দর।(জায়ান)

পড়ুন  কলেজের ক্রাশ যখন আমার প্রেমে পর্ব 1 | Emotional Love Story

[ জারা জায়ানকে অবাক করে দিয়ে জায়ান বের বুকে জাপিয়ে পড়ে]
" সত্যি আমি বিশ্বাস করতে পারছি না। আমি বিস্ফোরিত। এভাবে আমাকে অবাক করে দিবেন ভাবতেও পারি নিয়ে জায়ান। আমি তো ভেবেছি ভুলে গেছেন হয়তো। শেষে তো আমি আপনার কথায় কষ্টও পেয়েছি। শেষে তো ভয়ও পাইয়ে দিয়েছেন। পাজি লোক।( বুকে ঘুষি মেরে)
" কষ্ট পাইয়ে দিয়েছি। ওহ সরি কুইন। কষ্ট দিতে চাইনি।( কপালে চুমু দিয়ে)
জারা আবারো জায়ানকে জড়িয়ে ধরে।
" কেক কাটবে তো।(জায়ান)
[জারা ও জায়ান একসাথে কেক কাটে, জারা জায়ানকে খাইয়ে দেয় জায়ান ও জারাকে খাইয়ে দেয়। জারার মুখে কেক লেগে থাকে। জায়ান্ট তার দেখে জারার মুখের কাছে মুখ নিয়ে যায়।]
" কি করছেন?(জারা)
" হুশশশ.


জারা চোখ বন্ধ করে নেয়। জায়ান তার ঠৌঁট দিয়ে জারার মুখে লেগে থাকা কেকটুকু, খেয়ে ফেলে। জারা চাপা হাসে। জায়ান জারার সারামুখে চুমু খায়।
" জারা আই ওয়ান্ট এ কিস।(জায়ান)
জারা লজ্জা পায়। সে জায়ানের চোখ ধরে জায়ানের ঠৌঁটে চুমু দেয়। সরে আসতে নিলে জায়ান্ট সরতে দেয় না সে তার অধিকার খাটায়। কিছুক্ষণ পর জায়ান জারাকে নিয়ে দোলনায় বসে আকাশের দিকে তাকিয়ে থাকে।


" এভাবে সবসময় পাশে থাকবেন তো, জায়ান?(জারা)
" কোনো সন্দেহ? (জায়ান)
" নাহ, তবুও ভয় হয় যদি হারিয়ে যান। হারাবেন নাহ তো?
" আল্লাহ ছাড়া কেউ আলাদা করতে পারবে না। ভরসা করো তো?
" ভরসা করি। তাইতো নিশ্চিন্তে আপনার বুকে মাথা রাখতে পারি।
~""

Leave a Comment

Home
Stories
Status
Account
Search