Bangla Romantic Love Story Tomar Amar Prem Part 8 | Story

তোমার আমার প্রেম বাংলা গল্প

Imtihan Imran [ Part – 08 ]

ছেলেটার কথা শুনে ফারিন বিরক্ত হয়ে যায়, সাথে রাগও উঠে। কি আজব! বিএফ কয়টা থাকে মানুষের এটাও জানে না। ছেলে টাকে এখন তার অসহ্য লাগছে, সেই প্রথম দিন থেকে তার গায়ে পড়ে কথা বলতে আসে। অসহ্য লোক একটা। নীলার কাজিন দেখে কিছু বলতেও পারে না। আবার সহ্য করতেও কষ্ট হচ্ছে।

” একশ টা। কোনো সমস্যা আপনার?
” রেগে যাচ্ছেন কেনো? আপনার মতো সুন্দরী মেয়েদের অনেক বিএফ থাকতেই পারে।
” হোয়াট! আমাকে দেখে কি আপনার বারো ভাতারি মনে হচ্ছে?
” ছি ছি আমি এটা মিন করে বলিনি। ভুল বুঝবেন না।
” তাহলে কী মিন করে বলেছেন? আপনার কথাতে এটাই বুঝা যাচ্ছে।
” জি না, মোটেও না।
” সরেন তো। আপনার সাথে কথা বলতে ইচ্ছে করছে না।

Bangla Romantic Love Story

সিনহা হনহন করে হেটে চলে যায়। ছেলেটা সিনহার যাওয়ার দিকে তাকিয়ে থাকে।

” কি রাগ মেয়েটার? পুরাই ঝাল মরিচ।

আয়ানকে সবাই হলুদ লাগিয়ে দিয়ে যায়। আর কেউ বাকি নেই। হলুদ পর্ব টা শেষ। এবার কাজিন রা মিলে ঠিক করেছে নাচের আসর করবে। সবাই রাজি হয়।

আইরিন, সিজানের পাশে এসে দাঁড়ায়।

” কী সাহেব? এবার তো আপনাকে নাচতে হবে।
” কিন্তু আমি তো নাচতে জানি না।
” এটা সবাই বলে। একবার স্টেজে নামলেই দেখা যায়, সবাই ডান্স মাস্টার।
” তোমরা নাচো, আমি দেখি।
” উঁহু হবে না। আপনাকে নাচতে হবে। ইন ফেক্ট সবাইকে নাচতে হবে। কেউ বাদ যাবে না।
” কি বলো আন্টিরাও নাচবে?
” ধ্যাত না। মুরব্বিরা বাদ, শুধু আমরা যারা আছি তারা।
” কিন্তু আমার দ্বারা যে হবে না।
” হবে না হবে না বলবেন না। নাচতে হবে আপনাকে।

আইরিন এই কথা বলেই হনহন করে হেটে চলে যায়। আয়ানের এক কাজিন ঘোষণা করে দেয়। সবার প্রথমে নাচতে আসবে, আমাদের সবার প্রিয় আয়ান ভাইয়া।

সবাই হুর রে বলে চিৎকার করে। অনেকে সিটি বাজায়। সিজান হেসে হাত তালি দেয়।

আয়ান হঠাৎ, কাজিন মেয়েটার কাছে গিয়ে কানে কানে কিছু একটা বলল। মেয়েটা এবার মাইক্রোফোন হাতে নিয়ে বলল,

” শুধু আয়ান ভাইয়া একা না, উনার সাথে ডান্স করতে আসবে, আয়ান ভাইয়ার বন্ধু সিজান ভাইয়া। হাততালি।

মেয়েটার কথা শুনে সিজান অবাক হয়ে যায়। তাহলে আয়ান এটাই বলল। সিজান রেগে আয়ানের দিকে তাকায়। আয়ান হেসে ডোন্ট কেয়ার ভাব নেয় এবং সিজানকে স্টেজে আসতে ইশারা দেয়।

আইরিন হেসে সিজানের কাছে আসে।

” যান যান। তাড়াতাড়ি যান।
” যাচ্ছি।

Bangla Romantic Golpo

সাউন্ড বক্সে গান প্লে করা হয়। দুই বন্ধু একসাথে স্টেজে এসে দাঁড়ায়।

পুরো পৃথিবী একদিকে আর
আমি অন্য দিক।
সবাই বলে করছো ভুল
তোরা বলিস ঠিক।
তোরা ছিলি, তোরা আছিস,জানি তোরাই থাকবি।
বন্ধু….বোঝে আমাকে।
বন্ধু আছে…আর কী লাগে?

সুসম্পর্ক দুঃসম্পর্ক,আত্নীয় অন্যাত্নীয়
শত্রু মিত্র রক্ত সম্পর্ক কেউ বা দ্বিতীয়
সৎ অসৎ দূরের কাছের বৈধ অবৈধ
হাজারও এসব সম্পর্ক ভাঙে থাকে বন্ধুত্ব।
তোরা ছিলি, তোরা আছিস, জানি তোরাই থাকবি।
বন্ধু….বোঝে আমাকে।
বন্ধু আছে..আর কী লাগে।

সাউন্ড বক্সে গান বন্ধ হয়। আয়ান, সিজান অবশেষে থামে। দুজনে হাঁপিয়ে উঠেছে। আইরিন করতালি দেয়। সেই সাথে সবাইও সুর মিলায়।

আয়ান, সিজান স্টেজ থেকে নেমে আসে। আইরিন দৌড়ে দুজনের কাছে দাঁড়ায়।

” ভাইয়া ভালো হয়েছে ডান্সটা।
” থ্যাঙ্কিউ। এবার তুই যা।
” যাচ্ছি যাচ্ছি।

আইরিনের কাজিনেরা, আইরিন সবাই ভালো ডান্স করেছে। আর দর্শকদের বাহবা পেয়েছে।

” আপনি মিথ্যা কেনো বললেন?
” কি মিথ্যা বলেছি?
” এই যে আপনি নাকি ডান্স করতে পারেন না। অথচ এখন তো দেখলাম খুব ভালোই পারেন।
” এটাকে ভালো বললে, ভালোকে অপমান করা হবে।
” জি না। আমার থেকে ভালোই লেগেছে আপনার ডান্স।
” যাক অন্তত একজনের থেকে সুনাম পেলাম। ধন্য আমি।
” আচ্ছা যাই,অনেক রাত হয়েছে। ফ্রেশ হয়ে ঘুমাই।

” হুম যাও।
” আপনি যাবেন না? এখানে দাঁড়িয়ে থাকবেন?
” যাবো। আরো কিছুক্ষন থাকি। ভালোই তো লাগছে।
” আচ্ছা থাকেন আপনি। আমি চললাম।

আইরিন হনহন করে হেটে বাসার ভিতরে চলে যায়। আর সিজান একলাই বাইরে দাঁড়িয়ে চাঁদটাকে দেখছে। ওর কাছে ভালোই লাগছে। ঠান্ডা আবহাওয়া,চাঁদের আলো, ব্যাপার টা পুরো জমে গেছে।

Bangla Story

আজকে আয়ানের বিয়ে। আজকে তাকে আর কোনো কাজ করতে হচ্ছে না। কোনোকিছু দেখভাল করতে হচ্ছে না। যা করার তার আত্নীয় স্বজনরা করছে। আয়ানকে মেহেদি লাগিয়ে দেয়,গোছল করায়, এভ্রিথিং। সিজান সিরিয়াস হয়ে সবকিছু দেখছে আর মজাও পাচ্ছে।

আয়ান নিজের রুমে চলে যায় বরের সাজ দেওয়ার জন্য। সিজানও নিজের রুমে গিয়ে পাঞ্জাবী পায়জামা পড়ে রেডি হয়ে আয়ানের রুমে ঢুকে পড়ে, আয়ানকে সাহায্য করার জন্য।

” বাহ দোস্ত তোকে তো নতুন জামাই জামাই লাগছে। মাথায় বরের টুপি দিলে, নির্ঘাত সবাই মনে করবে তুইই জামাই।
” ধুর শালা মজা রেখে রেডি হও। (হেসে)

Click Here For Next Part- চলবে…

Writer- ইমতিহান ইমরান

Leave a Comment