Romantic Love Story In Bangla Tomar Amar Prem Part 6

তোমার আমার প্রেম বাংলা প্রেমের গল্প

Imtihan Imran [ Part – 06 ]

“এই যে শুনেন আমাকে এভাবে আপনি আপনি বলবেন না। আমি এখনো বুড়ি হয়ে যায়নি। বা আপনার মুরব্বি না। আমি আপনার ছোট। আমাকে তুমি করে বলবেন।

” আচ্ছা আচ্ছা বলবো। কি তেজ!
” তো বলেন দেখি, শুনি।
” তুমি.
” হ্যাঁ এবার ঠিক আছে। (হেসে)
” আচ্ছা আপনার কী ট্যালেন্ট আছে ,বলেন তো?
” যেমন?
” নাচা গানা এগুলা আর কী?
” ট্যালেন্ট কিছু নাই,আমার।
” গান একটা গান তো? দেখি পারেন কিনা?
” না পারলে কীভাবে গাইবো?
” পারবেন পারবেন। আমি উৎসাহ দিচ্ছি। (হেসে)

Love Story In Bangla

গান হবে এখানে

” বাহ! বাহ! চমৎকার। (হাততালি দিয়ে)
দেখছেন ভালোই গান গাইতে পারেন। কন্ঠও অনেক সুন্দর।

” বেশি সুনাম হয়ে যাচ্ছে। (হেসে)
” জি না। বেশি না, কম হয়ে যাচ্ছে।
” তোমার সাথে কথায় পারবো না।
” পারতে বলেছে কে?
” আচ্ছা চলো ভিতরে যাই। অনেক রাত হয়েছে।
” চলেন।

পরেরদিন বিয়ের গেইট লাগানো থেকে শুরু করে যাবতীয় এরেঞ্জমেন্টের লোক চলে আসে।
এইসব দেখা শুনার দায়িত্ব পড়ে আয়ানের উপর। যার বিয়ে তার উপর এইসব দায়িত্ব। সিজান ভেবে পায় না, এই ছেলে এতো কিছু সামলাবে কীভাবে?

যাই হোক সিজান একা একা দাঁড়িয়ে লোকদের এরেঞ্জমেন্ট দেখছে। আয়ানকে সকাল থেকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। অবশ্য না পাওয়ার’ই কথা। এতো বিশাল বাড়ি সাজানো, গোছানো সব দায়িত্ব তো তার উপরেই পড়েছে।

লোকদের সাজানোর ভিতরে সিজানের এক জায়গায় পছন্দ হল না। তাই সে তাদের উদ্দেশ্য করে বলল,

” এই যে ভাই এখানে লাল কালারের বাতি গুলো দিন। অন্য কালার দিয়েন না। খুলে ফেলুন। লাল ছাড়া অন্য কিছু মানাবে না, সুন্দরও দেখাবে না।
” ওকে ভাইজান।

আইরিন পিছনে দাঁড়িয়ে বিষয়টা খেয়াল করেছিল। সে এসে সিজানের পাশে দাঁড়ায়।

” কী করছেন?
” দেখছি।
” কী দেখছেন?
” তুমি যা দেখতে পাচ্ছো। আচ্ছা গায়ে হলুদের জন্য ফুল আনা হয়েছে।
” না। বিকালে আনা হবে। অবশ্য ভাইয়া আর আপনাকে যেয়েই আনতে হবে।
” বেচারার বিয়ে। অথচ সব দায়িত্ব বেচারাকে দেওয়া হয়েছে।

Bangla Story

” কি করবে বলুন। এই পরিবারে একমাত্র ছেলে বেচারাটা। তাই নিজের বিয়ে হলেও নিজেই সব দেখতে হয়।
” সেটাই তো দেখতেছি। এখন কোথায় সে? তার দেখাই পাচ্ছি না।
” কি জানি কোনো কাজে ব্যস্ত হয়তো।

” আইরিন, আইরিন..
” জি আম্মা জান।
” এইদিকে আয় তো।
” আচ্ছা আমি আসছি। আম্মা ডাকছে।
” ওকে যাও।

” কী করছেন?
” ডেকোরেট করছে, দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে সেগুলা দেখছি। আপনি কী করছেন?
” আমি একপাশে দাঁড়িয়ে আপনার সাথে কথা বলছি।
” আয়ানের হবু বউ কী করছো? নিশ্চয় অনেক খুশি সে?
” অবশ্যই খুশি। তার বিয়ে খুশি হবে না?
” সেটাই, খুশি হওয়ারি কথা।
” তাহলে আপনার সাথে কাল দেখা হচ্ছে।
” জি বউ নিতে আসবো তো। বান্ধূবীর সাথে নিশ্চয় আপনিও আসবেন।
” দেখা যাক। আসতেও পারি।

দুজনে এভাবে অনেকক্ষন কথা চালিয়ে যায়।

” আচ্ছা অনেক কথা হলো, রাখছি।
” হুম।

ফোন কেটে সিজান আয়ানকে খোঁজার জন্য নেমে পড়ে। বেচারা একা একা সব সামলাচ্ছে। তাকে একটু সাহায্য করাই উচিত।

সিজান, আয়ানকে খুঁজতে খুঁজতে বাসার ভিতরে চলে যায়। ভিতরে আয়ানকে পেয়েও যায়। লোকজন বাসার ভিতরে সাজাচ্ছে, সে সেটাই তদারকি করছে এখন। সিজান এসে আয়ানের পাশে দাঁড়ায়। আয়ান সিজানকে দেখে দুঃখ প্রকাশ করে।

Bangla Romantic Love Story

” সরি রে, তোকে সময় দিতে পারছি না। সবকিছু নিজেই দেখা শুনা করতে হচ্ছে

” ধুর বেটা। এটা কোনো কথা বলছিস? আমি সরি, আমার বন্ধুকে সাহায্য না করে। এখন থেকে আমিও সবকিছু দেখা শুনা করছি। দুই বন্ধু একসাথে থাকলে নো চিন্তা,নো কষ্ট অনলি রিলেক্স।

সিজানের কথা শুনে আয়ান হেসে দেয়।

” তাহলে তুই বাইরের দিক টা দেখ। আমি ভিতরের দিক টা দেখছি।
” ওকে ওকে তাহলে থাক তুই।

সিজান বাইরে চলে যায়। বাইরের ডেকোরেট দেখাশুনার জন্য।

” ভাই আপনাকে যে বললাম লাল কালালের বাতি দিতে। কই দিলেন না তো।
” ওহ ভাই মনে ছিল না। দিচ্ছি।
” আসলেই লাল কালার টা ঝকমক করবে।

সিজান পাশে ফিরে দেখে আইরিন।

” হুম। অন্য কালার অন্ধকার অন্ধকার লাগবে। বিয়ে বাড়ি, আলোর ঝলকানি না হলে একদম ভালো লাগবে না।
” হুম বিয়ে বাড়ি বলে কথা। আপনার চয়েজ ইজ টু গুড।
” থ্যাঙ্কিউ।
” আচ্ছা আপনার গার্লফ্রেন্ড আছে?

এমন জায়গায় এই প্রশ্ন শুনে সিজান কিছুটা বিবৃত বোধ করে। পরক্ষনে নিজেকে সামলে নিয়ে হেসে বলে,

” কেনো,?
” না মানে জানতে ইচ্ছে করল তাই।
” ওহ।
” আছে.?
” নাই।
” কি বলেন? আমার বিশ্বাস হয় না। এমন একটা সুন্দর হ্যান্ডসাম ছেলের গার্লফ্রেন্ড নেই?
” ছিল, ব্রেকাপ হয়ে গেছে।
” ওহহো..সর‍্যি।
” ইটস ওকে।
” সিজান সিজান..

আয়ান সদর দরজা থেকে সিজানকে ডাক দেয়।

” কী হয়েছে?
” এইদিকে আয় তো।
” আসছি ৷

Click Here For Next Part- চলবে…

Writer- ইমতিহান ইমরান

Leave a Comment